,

প্রতিভা কতটা কাজে লাগছে?

সময় ডেস্ক : প্রতিভা আল্লাহর বিশেষ দান। প্রত্যেক মানুষের বিশেষ প্রতিভা আছে। নিজেকে সমৃদ্ধ করতে নিজের ভেতরের বহুমুখী প্রতিভা কাজে লাগানোর বিকল্প নেই। প্রত্যেকের দায়িত্ব হলো নিজের মাঝে লুকিয়ে থাকা প্রতিভা খুঁজে বের করা। মহান আল্লাহ বলেন, ‘তারা কি ভূপৃষ্ঠে ভ্রমণ করে না, যাতে তারা জ্ঞান-বুদ্ধিসম্পন্ন হৃদয় ও শ্রুতিসম্পন্ন শ্রবণের অধিকারী হতে পারে! বস্তুত চক্ষু তো অন্ধ নয়, বরং অন্ধ হচ্ছে তাদের হৃদয়।’ (সুরা : হজ, আয়াত : ৪৬)
নিজের প্রতিভা দেশ, জাতি, সমাজ ও দ্বিনের কল্যাণে ব্যয় করা উচিত। অহেতুক ও ক্ষণস্থায়ী বিনোদনমূলক কাজে নিজের জীবন বিলীন করার কোনো মানে হয় না। মহান আল্লাহ এই প্রতিভা দান করেছেন ভালো কাজে লাগানোর জন্য। ব্যক্তির প্রতিভা, মেধা ও যোগ্যতা তখনই মানুষের জন্য কল্যাণকর ও ইতিবাচক হয়, যখন এসবের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট ব্যক্তির সততা, নৈতিকতা ও মূল্যবোধের সমন্বয় ঘটে। আর মূল্যবোধহীন প্রতিভা ও মেধা ফলহীন বৃক্ষের মতোই। প্রতিভা আর মেধার সঙ্গে সততা ও মূল্যবোধের সমন্বয় না থাকায় আমাদের দেশে প্রতিনিয়ত অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনা ঘটছে। আর তা ক্রমবর্ধমান। প্রতিভা ব্যয় হোক মানুষের কল্যাণে। আল্লাহ তাআলা বলেন, ‘তোমরাই হলে সর্বোত্তম উম্মত, মানবজাতির কল্যাণে তোমাদের উদ্ভব ঘটানো হয়েছে।’ (সুরা : আলে ইমরান, আয়াত : ১১০) ভালো ও মন্দ দুটি পথের দিশাই আল্লাহ তাআলা তাঁর বান্দাকে দিয়েছেন। শুধু বুদ্ধি ও চিন্তার শক্তি দান করে তাকে নিজের পথ নিজে খুঁজে নেওয়ার জন্য ছেড়ে দেননি। বরং তাকে পথ দেখিয়ে দিয়েছেন। তার সামনে ভালো ও মন্দ এবং নেকি ও গুনাহর দুটি পথ সুস্পষ্ট করে তুলে ধরেছেন। ভালোভাবে চিন্তা-ভাবনা করে তার মধ্য থেকে নিজ দায়িত্বে যে পথটি ইচ্ছা সে গ্রহণ করতে পারে। তাই নিজের বিবেককে কাজে লাগিয়ে সঠিক পথে নিজের প্রতিভার প্রতিফলন ঘটায়। অন্যথায় মানুষ ও পশুর মধ্যে ব্যবধান সামান্যই। মানুষ ক্ষুদ্র। জীবন সীমিত সময়ের। আসুন, জীবনটা অসীম রবের জন্য সঁপে দিই। ইরশাদ হয়েছে, ‘নিশ্চয়ই আমার নামাজ, আমার কোরবানি, আমার জীবন ও আমার মরণ সারা জাহানের রব আল্লাহর জন্য।’ (সুরা : আনআম, আয়াত : ১৬২) লেখক : সিনিয়র মুদাররিস জামিয়া বাবুস সালাম, বিমানবন্দর, ঢাকা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     এই বিভাগের আরো খবর