,

নবীগঞ্জ পৌরসভাসহ সিলেটের ১৬ পৌরসভা নির্বাচনের প্রস্তুতি

সময় ডেস্ক ॥ আগামী বছরের শুরুতেই সিলেটের ১৬ পৌরসভার বর্তমান পরিষদের মেয়াদ শেষ হচ্ছে। মেয়াদ শেষের আগেই ডিসেম্বরে এ পৌরসভাগুলোর নির্বাচন সম্পন্ন করতে চাচ্ছে নির্বাচন কমিশন। ইতিমধ্যে প্রস্তুতি শুরু হয়েছে। ভোটার তালিকা হাল নাগাদ করে নির্বাচনের সম্ভাব্য তারিখ জানিয়ে নির্বাচন কমিশনে সিলেট থেকে পত্র পাঠানো হয়েছে। সিলেটের নির্বাচনী কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, কমিশনের অনুমতি পেলেই তারা পুরোদমে নির্বাচনী প্রস্তুতি শুরু করবেন। ডিসেম্বরে নির্বাচনের আয়োজন হলে নভেম্বরেই তফসিল ঘোষণা করা হতে পারে। সিলেট বিভাগের চার জেলায় ১৯টি পৌরসভা রয়েছে। এর মধ্যে সময় না হওয়া এবং আইনি জটিলতার কারণে তিনটি পৌরসভার নির্বাচনের আয়োজন করা সম্ভব হবে না। তবে ১৬ পৌরসভার নির্বাচন আয়োজন করতে কোনো সমস্যা নেই। ইতিমধ্যে সিলেটের আঞ্চলিক নির্বাচন কমিশনের পক্ষ থেকে এ ব্যাপারে প্রাথমিক প্রস্তুতি গ্রহণ করা হয়েছে। এই পৌরসভার মধ্যে রয়েছে সিলেটের গোলাপগঞ্জ, কানাইঘাট ও জকিগঞ্জ, হবিগঞ্জের মাধবপুর, চুনারুঘাট, নবীগঞ্জ, হবিগঞ্জ ও শায়েস্তাগঞ্জ, সুনামগঞ্জের সুনামগঞ্জ, ছাতক, জগন্নাথপুর, দিরাই এবং মৌলভীবাজারের মৌলভীবাজার, কুলাউড়া, কমলগঞ্জ ও বড়লেখা। এ ছাড়া, মেয়াদোত্তীর্ণ না হওয়ায় সিলেটের বিয়ানীবাজার এবং মামলাজনিত কারণে মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গল ও আজমিরীগঞ্জ পৌরসভার নির্বাচন হচ্ছে না। ফলে তিনটি পৌরসভাকে বাদ দিয়েই সিলেটে নির্বাচনের আয়োজন করতে হচ্ছে। সিলেটের আঞ্চলিক নির্বাচন কর্মকর্তা মো. ইসরাইল হোসেন জানিয়েছেন, নির্বাচন কমিশন পৌর নির্বাচন অনুষ্ঠানের জন্য প্রস্তুতি চালাচ্ছে। প্রস্তুতির অংশ হিসেবে ভোটার তালিকা হালনাগাদসহ অনেক কার্যক্রম ইতিমধ্যে শেষ করা হয়েছে। নির্বাচন কমিশনেও এ ব্যাপারে পত্র দেয়া হয়েছে। নির্বাচন অফিস সূত্র জানিয়েছে, নির্বাচনযোগ্য ১৬ পৌরসভার মধ্যে আগামী জানুয়ারি মাসে ১টি, ফেব্রুয়ারি মাসে ১৩টি এবং মার্চ মাসে ২টি পৌরসভা পরিষদের ৫ বছর মেয়াদ পূর্ণ হবে। এ জন্য এই ১৬ পৌরসভার বিস্তারিত তথ্য চেয়ে নির্বাচন কমিশন থেকে সিলেটের আঞ্চলিক নির্বাচন কর্মকর্তার কাছে জানতে চাওয়া হয়। এর প্রেক্ষিতে পৌরসভার নাম ও শ্রেণি, নির্বাচন অনুষ্ঠানের তারিখ, শপথ গ্রহণের তারিখ, প্রথম সভা অনুষ্ঠানের তারিখ ও মেয়াদ উত্তীর্ণের তারিখসহ বিস্তারিত বিবরণ ঢাকায় নির্বাচন কমিশনে পাঠানো হয়। ২০১৫ সালের ৩০শে ডিসেম্বর সিলেট বিভাগের ১৬ পৌরসভার নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছিলো। সিলেটে অনুষ্ঠিত ওই নির্বাচনে প্রথম দলীয় প্রতীকে প্রার্থীরা অংশ নেন। এবং নির্বাচনে প্রতিটি পৌরসভায় আওয়ামী লীগ, বিএনপি, জাতীয় পার্টিসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের প্রার্থীরা অংশ নেন সিলেট জেলার গোলাপগঞ্জ পৌরসভায় ২০১৫ সালের ৩০শে ডিসেম্বর ভোট গ্রহণের পর নির্বাচিতরা ২০১৬ সালের জানুয়ারিতে শপথ নেন। পৌরসভার মেয়াদ পূর্ণ হবে আগামী ৩০শে জানুয়ারি। কানাইঘাট পৌরসভার মেয়াদ পূর্ণ হবে আগামী ২রা মার্চ। জকিগঞ্জ পৌরসভার মেয়াদ পূর্ণ হবে আগামী ১৭ই ফেব্রুয়ারি। হবিগঞ্জ জেলার মাধবপুর পৌরসভার মেয়াদ পূর্ণ হবে আগামী ৭ই ফেব্রুয়ারি। চুনারুঘাট পৌরসভার মেয়াদ পূর্ণ হবে আগামী ২১শে ফেব্রুয়ারি। নবীগঞ্জ পৌরসভার মেয়াদ পূর্ণ হবে আগামী ৭ই ফেব্রুয়ারি। হবিগঞ্জ পৌরসভার মেয়াদ পূর্ণ হবে আগামী ৭ই মার্চ। ২০১৫ সালের ৩০শে ডিসেম্বর নির্বাচনে শায়েস্তাগঞ্জ পৌর নির্বাচনে বিজয়ীরা শপথ নেন ২০১৬ সালের ২৭শে জানুয়ারি। এ পৌরসভার মেয়াদ পূর্ণ হবে আগামী ৬ই ফেব্রুয়ারি। সুনামগঞ্জ পৌরসভার মেয়াদ পূর্ণ হবে আগামী ৭ই ফেব্রুয়ারি। ছাতক পৌরসভার মেয়াদ পূর্ণ হবে আগামী ৮ই ফেব্রুয়ারি। ২০১৫ সালের ৩০শে ডিসেম্বরের নির্বাচনে বিজয়ীরা শপথ নেন ২০১৬ সালের ২৭ জানুয়ারি। জগন্নাথপুর পৌরসভার মেয়াদ পূর্ণ হবে আগামী ৮ই ফেব্রুয়ারি। ২০১৫ সালের ৩০শে ডিসেম্বর নির্বাচনে বিজয়ীদের শপথ হয় ২০১৬ সালের ২৭শে জানুয়ারি। দিরাই পৌরসভার মেয়াদ পূর্ণ হবে আগামী ৩রা ফেব্রুয়ারি। এ পৌরসভার প্রথম সভা হয়েছিল ২০১৬ সালের ৪ঠা ফেব্রুয়ারি। ২০১৫ সালের ৩০শে ডিসেম্বরের নির্বাচনে বিজয়ীরা শপথ নেন ২০১৬ সালের ২৭শে জানুয়ারি। মৌলভীবাজারের কুলাউড়া পৌরসভার মেয়াদ পূর্ণ হবে আগামী ৩রা ফেব্রুয়ারি। মৌলভীবাজার পৌরসভার মেয়াদ পূর্ণ হবে আগামী ১৩ই ফেব্রুয়ারি। কমলগঞ্জ পৌরসভার মেয়াদ পূর্ণ হবে আগামী ৬ই ফেব্রুয়ারি। বড়লেখা পৌরসভার মেয়াদ পূর্ণ হবে আগামী ২রা ফেব্রুয়ারি। নির্বাচনী কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, যেহেতু নির্ধারিত সময়ের মধ্যে নির্বাচন শেষ করতে হবে- এমন বাধ্যবাধকতা রয়েছে। এ কারণে ডিসেম্বরেই এসব পৌরসভার নির্বাচন হতে পারে। নির্বাচন কমিশন থেকে নির্দেশ পেলেই নির্বাচনের আয়োজন শুরু হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     এই বিভাগের আরো খবর