,

নবীগঞ্জে স্বাস্থ্য পরিদর্শকদের স্বতঃস্ফুর্ত ও শান্তিপূর্ন ভাবে কর্মবিরতি পালন

সংবাদদাতা ॥ বাংলাদেশ হেলথ এসিসটেন্ট এসোসিয়েশন কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী কমিটির আহবানে বাংলাদেশ স্বাস্থ্য বিভাগীয় পরিদর্শক সমিতি, স্বাস্থ্য বিভাগীয় মাঠ কর্মচারী এসোসিয়েশন ও বাংলাদেশ হেলথ ইন্সúেক্টর সেক্টোরাল এসোসিয়েশন এবং হেলথ এ্যাসিসটেন্ট এসোসিয়েশন নবীগঞ্জ উপজেলা শাখার উদ্যোগে গতকাল বৃহস্পতিবার সকাল ৮ টা থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত সারা দেশের ন্যায় বেতন বৈষম্য নিরসনের দাবিতে স্বতঃস্ফুর্ত ও শান্তিপূর্ন ভাবে কর্মবিরতি পালন করা হয়। নবীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের সামনে ব্যানার ও মনি পতাকা হাতে নিয়ে স্বাস্থ্য পরিদর্শক সহ স্বাস্থ্য পরিদর্শক ও স্বাস্থ্য সহকারীবৃন্দ এ কর্মসুচী পালন করেন। পরে উপজেলা স্বাস্থ্য পরিদর্শক ইনচার্জ ফয়সল আহমেদ এর সভপতিত্বে এবং হেলথ এসিসটেন্ট এসোসিয়েশন নবীগঞ্জ উপজেলা শাখার সাংগঠনিক সম্পাদক দীপংকর ভট্টাচার্য্য দেবুলের পরিচালনায় এতে বক্তব্য রাখেন সহ স্বাস্থ্য পরিদর্শক আশিষ রঞ্জন দাশ, সিনিয়র স্বাস্থ্য সহকারী আবু জাফর সেলিম গোলাম মৌলা, আব্দুল জেহাদ, মোসাহিদ মিয়া, উদয় দেব, অনঙ্গ বিজয় দাশ, নূরুল হোসেন, দিপেন্দ্র দাশ, বিপ্লব দাশ, হেলথ এসিসটেন্ট এসোসিয়েশন নবীগঞ্জ উপজেলা শাখার সভাপতি ছাদ্দক মিয়া সাধারণ সম্পাদক রুহেল মিয়া, পরিমল মালাকার, মোওকির মিয়া, শিরিনা পারভিন, সুমি রানী পাল, মাধুরী রানী গুণ, মাসুদা বেগম, হারুন মিয়া, প্রানেশ দাশ, নিপেশ দাশ, বজেন্দ্র দেবনাথ, অমিত বৈদ্য, রুমি বেগম, লুতফা বেগম, শিপ্রা রায়, সেবা রানী দাশ, কামরান হামিদ, তারেকুল ইসলাম, নিরঞ্জন দাশ প্রমুখ। বক্তারা বলেন, আমাদের দীর্ঘদিনের দাবি আদায়ে আমরা বারবার বৈষম্যের শিকার হয়েছি। টেকনিক্যাল পদ মর্যাদা বাস্তবায়নের জন্য বিগত ১৯৯৮ সালে ৬ ডিসেম্বর প্রধানমন্ত্রীর ঘোষনা এবং ২০১৮ সালে স্বাস্থ্যমন্ত্রীর প্রতিশ্রুতির পর ও আমলাতান্ত্রিক জটিলতায় আমাদের দাবির প্রতি উদাসীনতার কারণে কর্মবিরতির মত আন্দোলনে আমাদের যেতে বাধ্য করা হয়েছে। স্বাস্থ্য পরিদর্শক গ্রেড ১১, সহ স্বাস্থ্য পরিদর্শক গ্রেড ১২, স্বাস্থ্য সহকারী গ্রেড ১৩ সহ দ্রুত পদোন্নতির দাবী কার্যকরের ব্যাপারে প্রজ্ঞাপন না হওয়া পর্যন্ত আন্দোলন অব্যাহত থাকবে বলে জানান।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     এই বিভাগের আরো খবর