,

মাধবপুরে যৌতুক না দেওয়ায় গৃহবধুকে গালে লোহার ছ্যাকাঁ

স্বামী ও শাশুড়ী গ্রেফতার

পিন্টু অধিকারী, মাধবপুর থেকে :: মাধবপুরে বাবার বাড়ী থেকে যৌতুকের টাকা না এনে দেওয়ায় নারী পোশাক শ্রমিককে মাছ ভাজি করার লোহার পাত দিয়ে গালে গরম ছ্যাকাঁ দেওয়া হয়েছে। এ ঘটনায় পুলিশ টমটম চালক স্বামী সাইফুল ও তার মা বেদনা বেগমকে গতকাল বৃহস্পতিবার ভোর রাতে গ্রেফতার করে আদালতের নির্দেশে হবিগঞ্জ কারাগারে পাঠিয়েছে। উপজেলার চৌমহনী ইউনিয়নের মিজান মিয়ার মেয়ে নির্যাতিতা নারি শ্রমিক মৌসুমি বেগম জানান, দেড় বছর আগে একই উপজেলার বাঘাসুরা গ্রামের আব্দুল নুরের ছেলে সাইফুল ইসলামের সঙ্গে তার বিয়ে হয়। বিয়ের পর তাদের সংসারে এক পুত্র সন্তানের জন্ম হয়। প্রায় এক বছর ধরে স্বামী স্ত্রী দুজন নোয়াপাড়া বকুল মেম্বারের বাড়িতে ভাড়াটিয়া হিসেবে বসবাস করে থাকা অবস্থায় স্বামী সাইফুল ইসলাম দেড় লাখ টাকা যৌতুকের জন্য চাপ সৃষ্টি করে। টাকা দিতে না পারায় গত ১৫ মে দুপুরে তর্কবির্তকের এক পর্যায়ে মাছ ভাজি করার গরম লোহার পাত দিয়ে তার গালে ছ্যাকাঁ দেয়। মৌসুমির পিতা মিজানুর রহমান জানান, বিয়ের সময় যৌতুক হিসেবে নগদ টাকাসহ আসবাবপত্র দেওয়া হয়। কিন্তু বিয়ের পর পরই বাবার বাড়ি থেকে আরো টাকা আনার জন্য চাপ দিতো সাইফুল। টাকা না দিতে পেরে মৌসুরি ওপর নির্যাতন করা হতো। তার মেয়ে মৌসুমি এতদিন নির্যাতন সহ্য করে স্বামীর সংসার করেছে। গত ১৫ মে যৌতুকের ঘটনাকে কেন্দ্র করে তার গালে গরম লোহার পাত দিয়ে ছ্যাকা দেওয়া হয়। মাধবপুর থানার ওসি আব্দুর রাজ্জাক বলেন, এ ঘটনায় মাধবপুর থানায় যৌতুক ও নারি নির্যাতন প্রতিরোধ আইনে ভিকটিম মৌসুমি একটি মামলা করেছেন। এ মামলায় পুলিশ ভিকটিমের স্বামী শ^াশড়ীকে গ্রেফতার করে কারাগারে পাঠিয়েছে।

     এই বিভাগের আরো খবর