,

নবীগঞ্জের আগনা গ্রামে প্রবাসীর জমি দখলের অভিযোগ

দোকানঘর ভাংচুর ও গাছ কর্তনে প্রায়

৫ লক্ষাধিক টাকার ক্ষয়ক্ষতির দাবী

আব্দুল মুহিত : নবীগঞ্জে প্রতিপক্ষের জমি দখল, দোকানঘর ভাংচুর ও গাছ কর্তনের অভিযোগ উঠেছে। এতে প্রায় ৫ লক্ষাধিক টাকার ক্ষয়ক্ষতির দাবী করেছেন ভুক্তভোগী নজরুল ইসলাম। নজরুল ইসলাম জানান- নবীগঞ্জ উপজেলার ৩নং ইনাতগঞ্জ ইউনিয়নের আঘনা মৌজায় দীর্ঘদীন ধরে ৩০৫নং দাগে তাদের দখলকৃত জমীতে একটি টিনসেট মার্কেট ও পতিত জমি রয়েছে। ওই মৌজার একই দাগে ২নং বড় ভাকৈর (পূর্ব) ইউনিয়নের কাদিরগাঁও এলাকার আব্দুর রহমানের পুত্র ফয়ছল আহমদ গংদের ৩০ শতক জমি রয়েছে। এ নিয়ে ফয়ছল আহমদ গং ও আসকর মিয়া গং, গোলাপ মিয়া গং, আনিছ উল্লা গং, সমছু মিয়া গং ও কৌছর মিয়া গংদের সাথে মামলা মোকদ্দমা চলমান রয়েছে। কোর্টের নির্দেশে গত ১৭ মে কোন প্রকার উচ্ছেদ নোটিশ ছাড়াই উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) উত্তম কুমার দাশের নেতৃত্বে উক্ত দাগে তার জমিতে থাকা দোকানঘর ভাংচুর করে নজরুল ইসলামের ৩০ শতক ভূমি ফয়ছল আহমদ গংদেরকে সমজিয়ে দেয়া হয় এবং তার দোকানঘরের আসবাবপত্র রাস্তার পাশে ফেলে রেখে অধিকাংশ টিন তাদের নির্মানাধীন দোকানঘরে ব্যবহারের দাবী করেন তিনি। সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়- নজরুল ইসলামের দোকানঘরে ব্যবহৃত টিন ও আসবাবপত্র রাস্তায় ফেলে রাখা আছে। নজরুল ইসলামের লাগানো অধিকাংশ গাছপালা কর্তন করে ফেলে রাখা হয়েছে এবং ফয়ছল গংদের নির্মানাধীন টিনসেড ঘরেও তা ব্যবহার করা হচ্ছে। এ ব্যাপারে সংশ্লিস্ট কর্তৃপক্ষের দৃস্টি আকর্ষন এবং উক্ত সম্পত্তি পূনঃবন্টনের দাবী করেন তিনি।

     এই বিভাগের আরো খবর