,

জেলার শ্রেষ্ঠ মাদ্রাসা শিক্ষক দারুল হিকমাহ’র মুফতি শফিকুল ইসলাম

জাবেদ তালুকদার : জাতীয় শিক্ষা সপ্তাহ ২০২২ উপলক্ষে হবিগঞ্জ জেলায় শ্রেষ্ঠ শ্রেণি শিক্ষক (মাদ্রাসা) হিসেবে নির্বাচিত হয়েছেন নবীগঞ্জ পৌর এলাকার পূর্ব তিমিরপুরস্থ দারুল হিকমাহ জামেয়া ইসলামিয়া আলিম মাদ্রাসার সিনিয়র শিক্ষক মুফতি শফিকুল ইসলাম। গত ২৫ মে (বুধবার) জেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিস থেকে প্রেরিত ই-মেইলের মাধ্যমে বিষয়টি নিশ্চিত করা হয়। বিচারক প্যানেল শিক্ষকতার অভিজ্ঞতা, শিক্ষাগত যোগ্যতা, বিষয়ভিত্তিক জ্ঞান ও নিষ্ঠা, সৃজনশীল প্রশ্নপত্র তৈরির দক্ষতা, শিক্ষার্থী, অভিভাবক, সহকর্মী ও কর্তৃপক্ষের সাথে সহযোগিতার প্রবণতা, চারিত্রিক দৃঢ়তা-ব্যক্তিত্ব, সততা ও সুনাম, শৃঙ্খলাবোধ, সময়ানুবর্তিতা, শ্রেণিকক্ষে পাঠদানে নিয়মানুবর্তিতা, ডিজিটাল কনটেন্ট তৈরি এবং শ্রেণিকক্ষে মাল্টিমিডিয়ার ব্যবহার, সৃজনশীল প্রকাশনা, গুনগত মানের শিক্ষায় উদ্ভাবনী/সৃজনশীল উদ্যোগ ও উত্তম চর্চার নিদর্শন, কমিটির কাজে দক্ষ ও আর্থিক শৃঙ্খলা এসব মানদণ্ড অনুযায়ী প্রয়োজনীয় ডকুমেন্টস যাচাই-বাছাই করে ‘শ্রেষ্ঠ শ্রেণি শিক্ষক’ ঘোষণা করেছেন। উল্লেখ্য, মুফতি শফিকুল ইসলাম ২০১৪ সালে দারুল হিকমাহ মাদ্রাসায় যোগদান করেন। যোগদানের পর থেকেই তিনি অত্যন্ত সুশৃংখল ও সুনামের সাথে শিক্ষকতা করে আসছেন। মুফতি শফিকুল ইসলাম জেলার শ্রেষ্ঠ শ্রেণি শিক্ষক নির্বাচিত হওয়ায় অত্র মাদ্রাসার শিক্ষক, শিক্ষার্থীসহ অভিভাবকরা আনন্দিত। জেলার শ্রেষ্ঠ শিক্ষক নির্বাচিত হওয়ায় তার অনুভূতি জানতে চাইলে তিনি বলেন- শিক্ষা অফিসের এ স্বীকৃতি আমার একার নয়। এ অর্জন শিক্ষার্থী, অভিভাবক, সহকর্মী এবং পরিচালনা পরিষদসহ এলাকাবাসীর। তিনি বলেন, এ স্বীকৃতি আমাকে অনুপ্রাণিত করেছে। আশাকরি, এর ইতিবাচক ফলাফল শিক্ষা কার্যক্রমকে আরও গতিশীল করবে। তিনি আরও বলেন, একজন শিক্ষকের মূল দায়িত্ব শুধু টেক্সট বই পড়ানো নয়, টেক্সট বইয়ের মধ্য দিয়ে প্রকৃত জীবন বই অনুধাবনের উপযোগী করে গড়ে তোলা একজন শিক্ষকের মহান দায়িত্ব। শিক্ষা অফিস যেসব বিষয়কে সামনে রেখে মার্কিং করেছেন, আমার বিশ্বাস সোনার বাংলায় সোনার মানুষ গড়তে এসব বিষয় শিক্ষাক্ষেত্রে কাংখিত ফলাফল বয়ে আনবে। পরিশেষে তিনি অধ্যক্ষ, পরিচালনা কমিটি, নবীগঞ্জ উপজেলা শিক্ষা অফিস, জেলা শিক্ষা অফিস নির্বাচক প্যানেলেরকাছে তিনি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছেন।

     এই বিভাগের আরো খবর